,

বাঁশখালী সমিতির ‘সম্মাননা’ পেলেন কৃতি ব্যাংকার মুহাম্মদ আলী

দেশের ব্যাংকিং খাতে অসামান্য অবদান রাখায় বাঁশখালী সমিতি চট্টগ্রাম কর্তৃক ‘সম্মাননা স্মারক’- এ ভূষিত হয়েছেন বাংলাদেশের প্রথিতযশা ব্যাংকার, দি প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেডের ‘উপদেষ্টা’ বাঁশখালীর কৃতি সন্তান মুহাম্মদ আলী।

এ উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবর্ধনা ২৯ অক্টোবর সোমবার সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয়।
বাঁশখালী সমিতি চট্টগ্রামের সহ সভাপতি বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের ডেপুটি এটর্নী জেনারেল এডভোকেট এ.এইচ.এম জিয়া উদ্দিনের সভাপতিত্বে সমিতির পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন লায়ন শেখর দত্ত, লায়ন এম.আইয়ুব, লায়ন নাসিমুল আহসান চৌধুরী জুয়েল এমজেএফ। অনুষ্ঠানে প্রিমিয়ার ব্যাংকের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মধ্যে অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আবদুল জব্বার চৌধুরী, হেড অব ব্রান্ড মার্কেটিং মো. তারেক উদ্দিন, ভাইস প্রেসিডেন্ট ও হেড অব ও.আর নিজাম রোড ব্রাঞ্চ মো. আবদুল মান্নান উপস্থিত ছিলেন।
সমিতির পক্ষ থেকে আরও উপস্থিত ছিলেন আবু ওবাইদা আরাফাত, এনামুল হক, সাইমুন চৌধুরী প্রমুখ।

উল্লেখ্য, এই প্রথিতযশা ব্যাংকার বাঁশখালীর চেচুরিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ইতোপূর্বে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক ও শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। তাঁর বর্নাঢ্য ব্যাংকিং ক্যারিয়ারে তিনি দেশের ব্যাংকিং খাতকে সমৃদ্ধ করতে নানাবিধ অবদান রেখে চলছেন। ইসলামী ব্যাংকিং, এসএমই, ডিজিটাল ব্যাংকিং সহ উদ্যোক্তা তৈরীতে তাঁর উদ্ভাবিত ব্যাংকিং প্রকৌশল দেশ-বিদেশে সমানভাবে প্রশংসিত হয়েছে। তিনি বিভিন্ন সময় ব্যাংকিং সেক্টরে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পুরস্কারে ভূষিত হয়ে বাঁশখালীর সুনামকে অনন্য উচ্চতায় আসীন করেছেন।

বাঁশখালীর গর্ব এই পরোপকারী ব্যক্তিত্ব একজন সমাজসেবী হিসেবেও সমানে সমাদৃত। সমাজসেবার স্বীকৃতি স্বরূপ তিনি ২০১০ সালে বাঁশখালী সমিতি চট্টগ্রাম কর্তৃক ‘শ্রেষ্ট সমাজসেবী স্বর্ণপদক-২০১০’ লাভ করেন।
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

মতামত