,

ব্রেকিং

রাঙ্গুনিয়া হতে অস্ত্রসহ ৪ মামলার আসামি গ্রেফতার

রাঙ্গুনীয়া থানায় খুন ও ডাকাতিসহ ৪ মামলার পলাতক আসামী আসামী মো: সাইফুল ইসলাম (২৩) পিতা-আমির হোসেন প্রকাশ রোসাইয়া, সাং-কাইন্দারকুল, ফজর বাপের বাড়ী, মধ্যম সরফভাটা, ০৪ নং ওয়ার্ড, থানা- রাংগুনিয়া নিজ বাড়ীতে অবস্থান করছে মর্মে গোপন সংবাদ ছিল।

ড়ড়

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) জনাব মশিউদ্দৌলা রেজা, পিপিএম এর নির্দেশনায় রাঙ্গুনীয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর এর নেতৃত্বে রাঙ্গুনীয়া থানার অফিসার ও ফোর্স কয়েকটি টিমে বিভক্ত করে আসামীর বাড়ীর আশপাশসহ বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নেয়ার নির্দেশনা প্রদান করেন এবং নিজে সঙ্গীয় অফিসার-ফোর্সসহ আসামী’কে গ্রেফতার করার জন্য তার বাড়ীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। আসামীর বাড়ী দূর্গম পাহাড়ী এলাকায় হওয়াতে ইতোপূর্বেও পুলিশ তাকে কয়েকবার গ্রেফতারের চেষ্টা করে ব্যর্থ হতে হয়েছিল।

মো: সাইফুল ইসলাম পুলিশি অভিযানের বিষয়টি টের পেয়ে পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে ছদ্মবেশে সু-কৌশলে নিজ বাড়ীর পার্শ¦বর্তী ধানের বিলে গিয়ে লুকিয়ে থাকে। তল্লাশীকালে আসামী’কে নিজ বাড়ীতে না পেয়ে পুলিশ সদস্যরা তাকে আশপাশ এলাকায় খোঁজাখুজি করাকালে আসামী মো: সাইফুল ইসলাম’কে তার বাড়ীর পার্শ্ববর্তী ধানের মাঠ ও বিল দিয়ে পালিয়ে যেতে দেখেন। রাঙ্গুনীয়া সার্কেল অফিসার অভিযানে নিয়োজিত অফিসার-ফোর্স’দের ‘ফরেরখীল’ বিলটি ঘিরে ফেলার নির্দেশ দেন। অত:পর রাঙ্গুনীয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার, পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ ও কয়েকজন অফিসার-ফোর্সসহ আসামী’কে গ্রেফতার করার জন্য বিলে লাফিয়ে পড়েন। প্রায় ২ ঘন্টা কাঁদা-পানিতে অভিযান চালিয়ে সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর সঙ্গীয় অফিসার-ফোর্সসহ আসামী সাইফুল ইসলাম’কে ধরতে সক্ষম হন। ধৃত আসামীর দেহ তল্লাশী করে তার পরিহিত লুঙ্গির নীচে কোমড়ে গোঁজানো অবস্থায় ১টি বিদেশী পিস্তল পাওয়া যায়। বিল ও ধানী জমিতে পর্যাপ্ত পানি ও কাঁদা থাকায় আসামী’কে ধরতে তাদের প্রচন্ড বেগ পেতে হয়। জিজ্ঞাসাবাদে আসামী তার হেফাজতে আরো অস্ত্রশস্ত্র আছে মর্মে স্বীকার করে। আসামীর প্রদত্ত তথ্য ও দেখানো মতে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (রাংগুনিয়া সার্কেল) এর নেতৃত্বে ধৃত আসামী সাইফুল ইসলামের বসত ঘরের মধ্যবর্তী শয়ন কক্ষের খাটের নীচ হতে ১টি প্লাষ্টিকের বস্তায় রক্ষিত ১টি দেশীয় তৈরী পিস্তল, ৩টি বন্দুক, ৩টি এলজি, ২টি পাইপগান এবং ২৭ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়।

মতামত