,

দেশপ্রেমিক যুব জনশক্তিগঠনে ‘ঘাসফুল’র “ইয়েস” প্রকল্প ভূমিকা রাখবে- সিটি মেয়র

নাগরিক ডেস্ক: যুব সমাজের মাঝে সৃজনশীল দক্ষতা ও প্রযুক্তিগত নেতৃত্ব সৃষ্টির লক্ষ্যে বেসরকারি সংস্থা ঘাসফুল “ইয়ুথ ডেভেলপমেন্ট থ্রো এনহেনসিং প্রোগ্রেসিভ স্কিল এন্ড ক্রিয়েটিভিটি(ইয়েস) ” শীর্ষক প্রকল্প গ্রহণ করেছে। প্রকল্পের আওতায় নগরীর ১২টি ওয়ার্ডে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদেরকে প্রাযুক্তিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক জ্ঞান দানের মাধ্যমে আয়মুখী জনশক্তিতে পরিণত করা হবে। দাতা সংস্থা ইউকে এইড’র অর্থায়নে বেসরকারি সংস্থা ঘাসফুল এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। প্রকল্পের ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে ২ কোটি ৯৯ লাখ ৩৪ হাজার ৪২৫ টাকা। চলতি বছর জানুয়ারি থেকে আগামী ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত তিন বছর মেয়াদী এই প্রকল্পের আওতায় ছয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ হাজার জন,১২টি কলেজের ২৪’শ জন, ৩টি মাদ্রাসার ৬’শ জন এবং কমিউনিটির ২ হাজার জন মোট ৬ হাজার শিক্ষার্থীকে দক্ষ যোগ্য জনশক্তিতে পরিণত করা হবে। নগরীর ১২টি ওয়ার্ড- ৪, ৭, ৮, ৯, ১২, ১৩, ১৪, ২৩, ২৭, ২৯, ৩৩ ও ৩৬ নং ওয়ার্ডে প্রকল্পের কার্যক্রম পরিচালিত হবে। প্রকল্পে সহায়ক সংস্থা হিসাবে কাজ করবে ‘মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন ‘।
প্রকল্পের বিষয় নিয়ে আজ চসিক কে বি আবদুচ ছাত্তার মিলনায়তনে এক মত বিনিময় সভার আয়োজন করা হয়েছে। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর চট্টগ্রাম পরিচালক প্রফেসর প্রদীপ চক্রবর্তী, ঘাস ফুল প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আফতাবুর রহমান জাফর, প্রকৌশলী দেলোয়ার মজুমদার, চসিক প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়ুয়া প্রমুখ।


বক্তব্যে সিটি মেয়র বলেন, যুব সমাজকে দক্ষ, যোগ্য ও কর্মঠ জনশক্তিতে পরিণত করার জন্য গড়ে তুলতে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থার ভূমিকা প্রশংসার দাবীদার। প্রজন্ম সমাজকে সত্যিকার দেশপ্রেমিক ও দেশ সেবায় ব্রতী করতে আমাদেরকে প্রত্যেককে স্ব স্ব অবস্থান থেকে ভূমিকা রাখতে হবে। তিনি ঘাস ফুল গৃহিত প্রকল্প বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলরদেরকে সার্বিক সহায়তা প্রদানের আহবান জানান। সভায় প্রকল্প সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলরবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মতামত