,

সংসদে ‘এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়’ বিল উত্থাপন

নাগরিক নিউজ: বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এভিয়েশন (উড়োজাহাজ চলাচল) সংশ্লিষ্ট উচ্চশিক্ষা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে নতুন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠান করতে যাচ্ছে সরকার। এ লক্ষ্যে নতুন একটি আইন করার প্রস্তাব সংসদে উঠেছে। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি গতকাল ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয় বিল-২০১৯’ সংসদে উত্থাপন করেন। পরে বিলটি একদিনের মধ্যে পরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়।

গত ২৬ ডিসেম্বর এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য অধ্যাদেশ জারি করেন রাষ্ট্রপতি। নিয়ম অনুযায়ী চলতি অধিবেশনের শুরুর দিন অধ্যাদেশটি সংসদে উপস্থাপন করা হয়। অধ্যাদেশটি জারি করার পর সরকার যদি সেটা নতুন আইন করতে চায়, তবে সংসদে উপস্থাপনের পর ৩০ দিনের মধ্যে বিল আকারে নিয়ে আসার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছে, বিমান বাহিনী একাডেমি, ফ্লাইং ইনস্ট্রাক্টর স্কুল, ফ্লাইট সেফটি ইনস্টিটিউট, কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ ট্রেনিং ইনস্টিটিউট, অফিসার্স ট্রেনিং স্কুল নতুন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হবে। বিলে বলা হয়েছে, এ বিশ্ববিদ্যালয়ে এভিয়েশন, এভিয়েশন সংক্রান্ত প্রকৌশল, এভিয়েশন ব্যবস্থাপনা ও যুদ্ধ কৌশল, নিরাপত্তা ইত্যাদি বিষয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষাদান এবং গবেষণা করা হবে। প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছে, চ্যান্সেলর বিমান বাহিনীর কর্মরত এয়ার ভাইস মার্শাল বা তার উপরের পদবির কোনো কর্মচারী অথবা অবসরপ্রাপ্ত এয়ার ভাইস মার্শাল তার এর চেয়ে উপরের পদবির কাউকে চার বছরের জন্য উপাচার্য পদে নিয়োগ করবে।

বিলের উদ্দেশ্য ও কারণ সম্পর্কে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এভিয়েশন সংশ্লিষ্ট উচ্চশিক্ষার বিভিন্ন পর্যায়ে বিশ্বের সঙ্গে সংগতি রক্ষা ও সমতা অর্জন এবং জাতীয়, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এভিয়েশন বিষয়ে উচ্চশিক্ষা, গবেষণা, আধুনিক জ্ঞানচর্চা, পঠন-পাঠনের সুযোগ সৃষ্টি ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়’ প্রতিষ্ঠান উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

মতামত