,

যথা সময়ে ভারতকে জবাব দেওয়া হবে: ইমরান খান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, ভারতকে যথা সময়ে জবাব দেওয়া হবে। ভারতীয় বিমান বাহিনী পাকিস্তানে হামলার পর এক জরুরি বৈঠকের পর তিনি মঙ্গলবার এসব কথা বলেন। সেই সঙ্গে দেশের মানুষ ও সেনাবাহিনীকে সঙ্গে থাকার নির্দেশ দিেয়েছেন তিনি।

ভারত বলছে, কাশ্মীরে ১২টি মিরেজ ২০০০ জেট বিমান এ হামলায় অংশ নিয়েছে। ১ হাজার কেজি বোমা বর্ষণ করে জঙ্গিগোষ্ঠী জয়েশ-ই-মোহাম্মদের বেশ কিছু ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। হামলায় অন্তত ৩০০ জঙ্গি মারা গেছে। তবে হামলায় কোনো ধরনের হতাহত কিংবা ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলে দাবি করেছে পাকিস্তান। তারা বলছে, পাকিস্তানের যথাযথ জবাবে পালিয়ে গেছে ভারতীয় বিমান।

ওই হামলার পর বৈঠকে বসেন ইমরান খান। বৈঠকে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ভারতীয় হামলাকে চূড়ান্ত আগ্রাসন বলে মন্তব্য করা হয়। পরে ইমরান খান বলেন, ‘পছন্দনীয় সময়ে এবং সঠিক জায়গায় উপযুক্ত জবাব দেবে পাকিস্তান।’

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা কমিটির জরুরি ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। দেশটির পররাষ্ট্র, প্রতিরক্ষা ও অর্থমন্ত্রী, জয়েন্ট চিফ অব স্টাফ চেয়ারম্যান, সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া, নৌ-বাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল জাফর মাহমুদ আব্বাসি, বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মুজাহিদ আনোয়ার খান ও অন্যান্য জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি বলেছেন, ভারতের শুভবুদ্ধির উদয় হওয়া উচিত। উপযুক্ত জবাব দেয়ার অধিকার তার দেশের রয়েছে। ভারতের হামলাকে তিনি আগ্রাসন বলে মন্তব্য করেছেন।

এদিকে, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, ভারতকে শক্তহাতে রক্ষা করা হবে। ভারতের জন্য সব কিছু করতে প্রস্তুত আছে তার দেশ। মঙ্গলবার তিনি এসব কথা বলেন। মঙ্গলবার ভোর সাড়ে তিনটার দিকে ভারতের বিমান বাহিনী পাকিস্তান সীমান্ত পেরিয়ে জঙ্গিদের আস্থনায় হামলা করে। এতে ভারতের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, তিন হাজার জঙ্গি নিহত হয়েছে।

ভারত থেকে দাবি করা হয়েছে, সোমবার বালাকোট সেক্টর থেকে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ঢুকে পড়ে ভারতীয় বিমান বাহিনীর যুদ্ধবিমান। বালাকোট, চাকোটি এবং মুজফফরাবাদে জয়েশ-ই-মোহাম্মদের ৩টি কন্ট্রোল রুম এবং বেশ কয়েকটি লঞ্চ প্যাড ধ্বংস করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভয়াবহ আত্মঘাতী হামলা চালায় পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী জয়েশ-ই-মোহাম্মদ। এই হামলায় ভারতের ৪৪ নিরাপত্তা কর্মকর্তা নিহত হন। আর এই হামলার মদদাতা হিসেবে পাকিস্তানকে দায়ি করে আসছে ভারত।

তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়া টুডে, হিন্দুস্থান টাইমস।

এম.এ/

মতামত