,

জলবায়ু শরনার্থীদের জীবন মান উন্নয়নে কোরিয়ার “ডিজায়ন” চসিক সমঝোতা স্মারক

নাগরিক ডেস্ক: জলবায়ু পরিবর্তনে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জীবন মান উন্নয়নে কোরিয়ান সেবা সংস্থা “ডিজায়ন” এখন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে কাজ করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। নগরীর পাহাড়ের পাদদেশে ও বসতি এলাকায় বসবাসকারী অসচ্ছল, নিম্নজীবী মানুষের জীবনমান উন্নত করণে আজ ডিজায়ন ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মধ্যে এক সমঝোতা স্মারক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের উপস্থিতিতে চুক্তি পত্রে চসিক’র পক্ষ থেকে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো সামসুদ্দোহা ও ডিজায়ন’র পক্ষ থেকে সংস্থা প্রতিনিধি সিও মি কিয়ুং স্বাক্ষর করেন।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম নগরে ডিজায়ন’র সাথে যৌথ ভাবে কাজ করবে “ন্যাচার প্লাস” নামীয় কোরিয়ান বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক একটি শিক্ষার্থী সংগঠন। বিশ্ব উষ্ণায়নে জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে ক্ষতিগ্রস্তদের বাংলাদেশীদের সহায়তা করার লক্ষ্য নিয়ে ২০১২ সালে এই সংগঠন গঠন করা হয়। দশজন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী ও ৬০ জন এলামনাইয়ের অংশগ্রহণে সংগঠনটি কাজ করবে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বসতি স্থাপন কারী বাস্তুহারা মানুষের জীবনমান উন্নয়নে তহবিল সংগ্রহ ও সচেতনতা কার্যক্রম পরিচালনা করবে সংগঠনটি। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ক্যাম্পাসে গ্রিণ শপ, রাস্তার পাশে ফ্লি শপ, বই সংগ্রহ কার্যক্রম, ব্যবহার্য পণ্য সংগ্রহসহ সচেতনতামূলক কাউন্সেলিং কার্যক্রম পরিচালনা করবে সংগঠন। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এই কার্যক্রমে সার্বিক সহায়তা প্রদান করবে।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, নগরের বসতি বাসী নিম্নজীবী অস্বচ্ছল মানুষের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, স্যানিটেশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করণে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠী নগরে অভিবাসিত হচ্ছে। তাদের সুস্থ স্বাভাবিক জীবন মান নিশ্চিত করতে আমাদেরকে স্ব স্ব অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে। কোরিয়ান বেসরকারি সেবা সংস্থা ডিজায়ন ও ন্যাচার প্লাস বাংলাদেশের জলবায়ু শরণার্থীদের জন্য কাজ করছে এটা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবীদার।

অনুষ্ঠানে চসিক প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ একেএম রেজাউল করিম, জলবায়ু শরণার্থীদের পক্ষে ধ্বনি বেগম, শিক্ষার্থী দের পক্ষে সায়মা বেগম, জান্নাতুল ফেরদৌস বক্তব্য রাখেন।

এম.এ/১৫৬

মতামত