,

ব্রেকিং

প্রবাসী ছেলেকে আনতে গিয়ে পুড়ে অঙ্গার মা বাবা

নাগরিক ডেস্ক: ৩ বছর পর দেশে আসছেন ওমান প্রবাসী ছেলে স্বপন। মা-বাবার মনে আনন্দের কমতি নেই। তাই ছেলেকে এগিয়ে আনতে ভোর রাতে মাইক্রোবাস যোগে চট্টগ্রাম বিমান বন্দরের পথে রওয়ানা দিয়েছেন বাবা আব্দুর রহমান ও মা বিবি কুলছুম। সাথে ছিলেন আরেক ছেলে আবুল কালাম, দুই নাতি (স্বপনের ছেলে) রাশেদ ও আব্দুল মালেক রনি ও স্বপনের সালা (স্ত্রীর ছোট ভাই) হাসান।

কিন্তু ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস ছেলের মুখ দেখার আগে তাঁরা চলে গেলেন না ফেরার দেশে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাইয়ের নিজামপুর কলেজ এলাকায় তাদের বহন করা মাইক্রোবাসে আগুন ধরে মুহর্তের মধ্যে লাশ হয়ে গেলেন তাঁরা। আহত অবস্থায় হাসপাতালের বেডে কাতরাচ্ছেন স্বপনের দুই ছেলে রাশেদ ও রনি। মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৭টায় এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

নিহতরা কুমিল্লা জেলার মনোহরগঞ্জ থানার হাসনাবাদ ইউনিয়নের কমলপুর গ্রামের মাইঝা বাড়ির বাসিন্দা।

নিহত আব্দুর রহমানের ছেলে মোঃ রুবেল জানায়, ওমানে থাকা তাঁর বড় ভাই স্বপনকে আনতে বাড়ি থেকে চট্টগ্রাম বিমান বন্দরে যাচ্ছিলো মা-বাবা ভাই-ভাতিজারা। পথে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে আমার বাবা ও মা মারা গেছে।

মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের কর্মকর্তা রবিউল আজম রবিন জানান, মঙ্গলবার ভোরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাইয়ের হাদিফকিরহাট এলাকায় একটি দ্রুতগামী কাভার্ডভ্যানের পেছনে ধাক্কা দিলে মাইক্রোবাসটি আটকে যায়। এরপর চলন্ত অবস্থায় মাইক্রোতে আগুন ধরে গেলে ঘটনাস্থলে ৩জন মারা যায়। আমরা খবর পেয়ে দ্রুত ছুটে এসে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করেছি।

এম.এ/১৪৪

মতামত