বিশ্ব ক্যান্সার দিবস আজ

বিশ্ব ক্যান্সার দিবস আজ

আজ ৪ ফেব্রুয়ারি। বিশ্ব ক্যান্সার দিবস। মরণব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে প্রতিবছর বিশ্বব্যাপী ৮০ লাখেরও বেশি মানুষ মৃত্যুবরণ করে, যার অর্ধেকেরই মৃত্যু হয় অপরিণত বয়সে। বাংলাদেশেও এই রোগের চিত্র আশঙ্কাজনক। আসুন ক্যানসার প্রতিরোধে আমরা এগিয়ে আসি। ক্যানসারের সবচেয়ে ভয়াবহ ঝুঁকির অন্যতম কারণ ধূমপান করা। আসুন ধূমপান থেকে দূরে থাকি, অন্যদেরকেও বিরত থাকতে সাহায্য...
রোহিঙ্গাদের দেখতে ঢাকায় আসছেন সুইজারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট

রোহিঙ্গাদের দেখতে ঢাকায় আসছেন সুইজারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট

মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত রোহিঙ্গাদের দেখতে চারদিনের সফরে আজ রবিবার ঢাকায় আসছেন সুইজারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট অ্যালেই বারসেট। সফরকালে সুইস প্রেসিডেন্ট কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে যাবেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানাবেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। এছাড়া বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি সুইস প্রেসিডেন্ট অ্যালেই বারসেটের সম্মানে নৈশভোজের আয়োজন করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন তিনি। বৈঠক শেষে বেশ কয়েকটি চুক্তি স্বাক্ষর হতে পারে। প্রসঙ্গত, ১৯৭২ সালের ১৩ মার্চ দু’দেশের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপিত হয়েছিল। সেদিনই সুইজারল্যান্ড বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়। বাংলাদেশ ও সুইজারল্যান্ডের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কের ৪৫ বছর পূর্তি হয়েছে ২০১৭ সালে। সুইজারল্যান্ডের রীতি অনুসারে গত ১ জানুয়ারি এক বছরের মেয়াদে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণ করেন অ্যালেই বারসেট। ইতিপূর্বে সুইজারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড ইকনোমিক ফোরামের (ডব্লিউইএফ) ৪৭তম বার্ষিক সম্মেলনে যোগ দিতে ১৬ জানুয়ারি রাতে ৫ দিনের সরকারি সফরে সুইজারল্যান্ডে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ডব্লিউইএফ নির্বাহী চেয়ারম্যান প্রফেসর ক্লাউস সোয়াবের আমন্ত্রণে প্রধানমন্ত্রী প্রথম বাংলাদেশী নির্বাচিত নেতা হিসেবে এ ফোরামে যোগ দিয়েছিলেন। সুইজারল্যান্ডের পূর্বাঞ্চলীয় আল্পস অঞ্চলে গ্রাউবান্ডেনে পার্বত্য রিসোর্ট ডাভোসে ১৭ থেকে ২০ জানুয়ারি ৪ দিনব্যাপী এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সুইস বা সুইজারল্যান্ড (জার্মান: die Schweiz ডি শ্বাইৎস, ফরাসি: la Suisse লা স্যুইস্, ইতালীয়: Svizzera স্বিৎস্স্রা, রোমান: Svizra স্বিৎস্রা) ইউরোপ মহাদেশে অবস্থিত একটি রাষ্ট্র। তবে এটি ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য নয়। এর মুদ্রার নাম সুইস ফ্রাংক এবং বাৎসরিক স্থুল দেশজ উৎপাদের পরিমাণ ৫১২.১ বিলিয়ন সুইস ফ্রাংক (২০০৭ খ্রিস্টাব্দ)। এটি পৃথিবীর ধনী রাষ্ট্রসমূহের অন্যতম। ২০০৬ খ্রিস্টাব্দে জনসংখ্যা ছিল প্রায় পৌণে এক কোটি। এদেশে মানুষের মাথাপিছু বাৎসরিক আয় ৬৭,৮২৩ সুইস ফ্রাংক (২০০৭ খ্রিস্টাব্দ)। বের্ন শহরটি সুইজারল্যান্ডের রাজধানী। অন্যতম বিখ্যাত অন্য দুটি শহর হলো জুরিখ এবং জেনিভা। জুরিখের দিকের লোকেরা জার্মান এবং জেনিভার দিকের লোকেরা ফরাসি ভাষায় কথা বলে। আল্পস পর্বতমালা ও প্রশস্ত হ্রদ সুইজারল্যান্ডকে অনন্য...
জার্মানির মুসলিমবিদ্বেষী ওয়াগনারের ইসলাম গ্রহণ

জার্মানির মুসলিমবিদ্বেষী ওয়াগনারের ইসলাম গ্রহণ

জার্মানির কট্টর মুসলিম বিদ্বেষী দল হলো অল্টারনেটিভ ফার ডয়েচল্যান্ড পার্টি তথা এএফডি। এই দলটি সর্বশেষ নির্বাচনে তৃতীয় স্থান অর্জন করেছে। সবাই জানেন যে ২০১৪ সালে যখন ইউরোপের সব দেশ মুসলিম শরণার্থীদের আশ্রয় দিতে অস্বীকার করেছিল, তখন তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন অ্যাংগেলা মার্কেল। তার এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কট্টর প্রচারণা চালায় এএফডি। বলা যায় জার্মানিতে মুসলিম বিরোধী ফেনোমেনা তৈরি করে ফেলে দলটি। আর তাদের উত্থানের কারণে যে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে তাতে করে গত চার মাসেও মের্কেল জোট সরকার গঠন করতে পারেনি। এরমধ্যেই আজ এমন একটা খবর আসছে যা আমাদের সব মুসলমানকে আল্লাহর দরবারে সেজদা দিতে বাধ্য করবে। খবরটি হলো এএফডির কট্টর মুসলিম বিদ্বেষী আর্থার ওয়াগনার নিজেই ইসলাম গ্রহণ করেছেন। আল্লাহু আকবার। যেই ব্যক্তি ছিলেন তাকেই আল্লাহ মুসলিম হিসেবে কবুল করেছেন। আলহামদুলিল্লাহ, আর্থার এখন আমাদের মুসলিম ভাই। আর্থার পূর্ব জার্মানির ব্রান্ডেনবার্গ রাজ্য এএফডি পার্টির প্রভাবশালী নেতা ছিলেন। তিনি ইসলাম গ্রহণ করে গত ১১ জানুযারি তিনি পার্টি থেকে পদত্যাগ করেন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্লিনভিত্তিক দৈনিক ডার টাগেশপিগেল। মাঝরাতে ঘুম ভাঙার পর এই খুশির খবরটি লিখলাম এ নিয়তে যে হে মুসলিম ভাই ও বোনেরা আসুন আমরা সবই আল্লাহর ওপর ভরসা করি। তিনি সবচেয়ে বড় রণনীতি ও রণকৌশলের মালিক। তিনি যদি চান তাহলে চরম ইসলাম বিদ্বেষীকেও মুসলিমে পরিণত করে দিতে পারেন। তিনি আমাদের অভাবনীয় সাফল্য দিতে পারেন। কাজেই মহান ইসলামের ভালোবাসা-দরদ-সহমর্মীতার কথাগুলো ছড়িয়ে দিন। ঘৃণার পরিবর্তে ভ্রাতৃত্বের কথা বলুন। হিন্দু-বৌদ্ধ-ইহুদি-খ্রিস্টান-নাস্তিকরা অমুসলিম হলেও আদম-হাওয়ার (আ.) সন্তান হিসেবে তারা আমাদের খান্দানি ভাই। তাদের হেদায়েতের জন্য দোয়া করুন, তাদের সাথে উত্তম কথা বলুন, তাদের ব্যথার দোসর হোন, তাদের রূহকে জাগিয়ে তুলুন। ইনশাআল্লাহ, আল্লাহর জমিনে আল্লাহর দ্বীন কায়েম হবে। আমাদের কাজ হলো ইসলামের ইনসাফ ও ইহসানের বার্তাটি তুলে ধরা। শোকরিয়া,...
অস্ত্র দিয়ে মিয়ানমারকে সহায়তা করছে রাশিয়া

অস্ত্র দিয়ে মিয়ানমারকে সহায়তা করছে রাশিয়া

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর সেনাবাহিনী ও উগ্রপন্থী বৌদ্ধদের দমন-পীড়ন, জ্বালাও-পোড়াও, খুন-ধর্ষণ নিয়ে তীব্র আন্তর্জাতিক সমালোচনার ঝড় থেকে রক্ষায় দেশটিকে সহায়তার অঙ্গীকার করেছে রাশিয়া। মস্কো এমন এক সময় মিয়ানমারকে এ সহায়তার অঙ্গীকার করল যখন সে দেশ থেকে প্রাণ বাঁচাতে সাড়ে ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ-শিশু পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। নির্মমতার স্মৃতি এই রোহিঙ্গাদের মনে এতটাই টাটকা ও দগদগে ক্ষতের মতো যে, বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তির আওতায় তাদের অনেকে নিজ দেশে ফেরত যেতে অনিচ্ছুক। জাতিসংঘ রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর ওই নির্যাতনকে ‘জাতিগত নির্মূল’ অভিযান বলে আখ্যায়িত করেছে। এ ছাড়া বিভিন্ন দেশ ও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা মিয়ানমারের ওই কর্মকাণ্ড গণহত্যার শামিল হতে পারে বলে সমালোচনা করেছে। রোহিঙ্গাদের ওপর বর্বরতা নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটে রাখায় শান্তিতে নোবেল পুরস্কারজয়ী মিয়ানমারের ‘গণতন্ত্রকামী’ নেত্রী ও দেশটির কার্যত নেতা অং সান সু চিরও কঠোর নিন্দা জানিয়েছে তারা। রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শয়গু বলেন, বিশ্বকে রাখাইন পরিস্থিতি নিয়ে বোঝাতে মিয়ানমারের চেষ্টায় সহায়তা দেবে তাঁর দেশ। এর আগে সপ্তাহান্তে মিয়ানমারের রাজধানী নেপিডোতে সফর করেন তিনি। সফরে তিনি দেশটির প্রতিরক্ষা সার্ভিসের কমান্ডার-ইন-চিফ সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং ও অন্য শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘উত্তরাঞ্চলীয় রাখাইন রাজ্যে সন্ত্রাসী হামলার সঙ্গে রাজনৈতিক সংযোগ রয়েছে এবং নানা সমস্যার সম্মুখীন হওয়া সত্ত্বেও মিয়ানমার সরকার, সেনাবাহিনী ও সব জনগণকে অবশ্যই এসব সমস্যা মোকাবিলার পথ খুঁজে বের করতে হবে।’ ফেসবুকে মিন অং হ্লাইংয়ের দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী আশ্বস্ত করেছেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে মিয়ানমারের প্রকৃত অবস্থা বোঝাতে রাশিয়ার গণমাধ্যম মিয়ানমারকে সহায়তা করবে।’ রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সফরে দুই দেশের সশস্ত্র বাহিনীর মধ্যে প্রশিক্ষণসহ প্রযুক্তিগত সহযোগিতা জোরদার করা, নৌবাহিনীতে যুদ্ধজাহাজ ও সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের মধ্যকার শুভেচ্ছা সফর বাড়ানো এবং সর্বোপরি দুই দেশের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরও শক্তিশালী করা নিয়ে উভয় পক্ষ...
শুভ জন্মদিন ছাত্রনেতা আরিফুজ্জামান আরিফ

শুভ জন্মদিন ছাত্রনেতা আরিফুজ্জামান আরিফ

শুভ জন্মদিন আরিফুজ্জামান। আজ দক্ষিণজেলা ছাত্রলীগের শীর্ষনেতা, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন, বাঁশখালী উপজেলার নব-নির্বাচিত সেক্রেটারি আরিফুজ্জামান আরিফের জন্মদিন। জন্মদিনে ফুলেল শুভেচ্ছা রইল। চট্টগ্রাম দক্ষিণজেলা ছাত্রলীগের পুনর্গঠনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখা ছাত্রলীগের এই ত্যাগী নেতার কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান পেয়েছেন কিছুদিন আগে। দীর্ঘদিন পর হলেও ত্যাগের এই মূল্যায়ন প্রাপ্যের চেয়ে কম বলেও উল্লেখ করেছিলেন কেউ কেউ। দক্ষিণজেলা আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী নেতা আবদুল্লাহ কবির লিটন ও ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদের আস্থাভাজন হিসেবে পরিচিত এ ছাত্রনেতার গ্রামের বাড়ি বাঁশখালীর বাহারছড়া ইউনিয়নের বাহারছড়া গ্রামে। তিনি সম্ভ্রান্ত মুসলিম ও আওয়ামী পরিবারের সন্তান। তাঁর পিতা আবুল কালাম মাস্টার প্রবীণ আওয়ামী রাজনীতিবিদ হিসেবে স্বনামে পরিচিত। তিনি বাণীগ্রাম সাধনপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, মুক্তিযোদ্ধাকালীন ইউনিয়ন ত্রাণকমিটির প্রধান, দীর্ঘ ২৭ বছর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি, মুক্তিযোদ্ধাকালীন থানা আওয়ামীলীগের সদস্য এবং পরবর্তীতে থানা আওয়ামীলীগের ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন। আরিফ বাণীগ্রাম স্কুল থেকে এসএসসি, ক্যান্টনমেন্ট কলেজ থেকে এইচএসসি এবং চট্টগ্রাম কলেজ থেকে অনার্স – মাস্টার্স সম্পন্ন করে বর্তমানে চট্টগ্রাম আইন কলেজে অধ্যয়নরত...
শুভ জন্মদিন বাঁশখালীর কৃতি সন্তান ‘প্রফেসর জামাল উদ্দীন চৌধুরী’

শুভ জন্মদিন বাঁশখালীর কৃতি সন্তান ‘প্রফেসর জামাল উদ্দীন চৌধুরী’

শহীদ হাবিব: যুগে যুগে বাঁশখালীর মাটিতে জন্ম নিয়েছেন অনেক জ্ঞানী গুণী ও মনীষী। যারা ধন্য করেছেন বাঁশখালীর মাটিকে, যারা এই বাঁশখালীকে পরিচিত করেছেন বিশ্বের দরবারে, মাথা উঁচু করেছেন বাঁশখালীর। আজ বাঁশখালীর এমনই একজন কীর্তিমান পুরুষের জন্মদিন। যিনি আপন আলোয় সমুজ্জ্বল মানুষ গড়ার এক জীবন্ত কারিগর, যিনি দেশ থেকে দেশান্তরে নিরলসভাবে করে গেছেন জ্ঞানের চাষাবাদ। তিনি হলেন বাঁশখালীর পুইছড়ি ইউনিয়নের কৃতী সন্তান বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও কলামিস্ট প্রফেসর জামাল উদ্দীন চৌধুরী স্যার। আজ স্যারের ৬৫ তম জন্মবার্ষিকী। এই শুভক্ষণে স্যারের প্রতি রইল বিনম্র শ্রদ্ধা-ভালবাসা ও অজস্র শুভ কামনা। সংক্ষিপ্ত বর্ণনায় প্রিয় জামাল স্যার ____________________­_____________ প্রফেসর জামাল উদ্দীন চৌধুরী। এক কথায় মানুষ গড়ার এক জীবন্ত কারিগর। তিনি একাধারে শিক্ষক, কলামিস্ট ও সমাজসেবক। জন্মগ্রহণ করেন ১৯৫২ সালের ১ অক্টোবর বাঁশখালীর পুইছড়ি ইউনিয়নের সম্ভ্রান্ত পুুইছড়ি জমিদার বাড়িতে। পিতা মাওলানা আবদুর রহমান চৌধুরী, মাতা ছেমন আরা বেগম চৌধুরাণী। তিনি ১৯৮৭ সালে চট্টগ্রামের রাউজানের মহিয়সী নারী ফাউজিয়া শেলী চৌধুরীর সাথে পরিণয়সূত্রে আবদ্ধ হন। ব্যক্তিগত জীবনে জামাল উদ্দীন চৌধুরী দুই সন্তানের জনক। এরা হলেন- সেজাদ রহমান চৌধুরী অনিক এবং রাগিব রহমান চৌধুরী। বড় ছেলে সেজাদ রহমান চৌধুরী University College London থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন এবং ছোট ছেলে রাগিব রহমান চৌধুরী বিশ্ববিখ্যাত Oxford University তে স্নাতক পর্যায়ে অধ্যয়নরত আছেন। # শিক্ষাজীবনঃ এই মহান জ্ঞান তাপসের পাঠ্যজীবন শুরু হয় ১৯৫৭ সালে বাঁশখালীর পশ্চিম পুইছড়ি গ্রামের ইজ্জতীয়া প্রাইমারী স্কুলে। তিনি বাঁশখালীর নাপোড়া শেখেরখীল উচ্চ বিদ্যালয় হতে ১৯৬৭ সালে এসএসসি পাশ করেন। তারপর ১৯৬৯ সালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ হতে এইচএসসি পাশ করেন। পরবর্তীতে তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় হতে গণিত বিভাগে কৃতিত্বের সঙ্গে ১৯৭৫ সালে স্নাতক এবং ১৯৭৬ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন। তারপর তিনি যুক্তরাজ্যের Greenwich University London হতে ১৯৮৭ সালে কৃতিত্বের সহিত PGCE সম্পন্ন করেন। # পেশাজীবনঃ অসম্ভব মেধা...