,

নলুয়ায় লিয়াকত আলীর বিরুদ্ধে পেশীশক্তি দিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীকে ঘায়েলের অভিযোগ

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার নলুয়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী ও উপজেলা কৃষক লীগের সহসভাপতি মিজানুর রহমানের উপর হামলা চালিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। রোববার (২৩ জানুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলা নির্বাচন অফিসে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় চেয়ারম্যান প্রার্থী মিজানুর রহমান সহ অন্তত ৬ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

অভিযোগ রয়েছে, সাতকানিয়ার নলুয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী লিয়াকত আলী লোহাগাড়ার পদুয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা। নির্বাচনে লড়তে জালিয়াতি করে বানিয়েছেন নলুয়া ইউনিয়নের জাতীয়তা সনদ। চিহ্নিত মাদককারবারি ও জামাত-শিবিরের পৃষ্টপোষক হিসেবে পরিচিত লিয়াকত আলী এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে বিনা ভোটে চেয়ারম্যান হতে মরিয়া হয়ে ওঠেছেন।

সেনাবাহিনী থেকে চাকুরিচ্যুত লিয়াকত আলী দেশি-বিদেশি মাদককারবারিদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তুলেছেন বলে অভিযোগ জমা পড়েছে ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ (আইজিপি) বরাবরে। মাদক ব্যবসার মাধ্যমে হঠাৎ করে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়েছেন লিয়াকত। নিজেকে চেয়ারম্যান প্রার্থী পরিচয় দিয়ে এলাকায় বেপরোয়াভাবে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড পরিচালনা করারও নানা অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

হামলার ঘটনায় আহতরা হলেন, নলুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ন সম্পাদক জুলফিকার আলি চৌধুরী ভুট্টো, মো. এমরান, ৩ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সভাপতি আবুল হোসেন, শহিদুল ইসলাম ও চেয়ারম্যান প্রার্থী মিজানুর রহমান। আহতরা সবাই দোহাজারী জেনারেল হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন।

২১ জানুয়ারি রাত আনুমানিক সাড়ে ১২টার দিকে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মিজানুর রহমান শ্বশুরবাড়িতে গেছেন —এমন খবরে সেখানে ২০ থেকে ২৫ জনের একটি মুখোশ পরিহিত সন্ত্রাসীদল অস্ত্রের মহড়া দেয়। সেখানে ফাঁকি গুলি ছুঁড়ে আতঙ্কও তৈরি করা হয়েছে। পরদিন এ ঘটনার একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন চেয়ারম্যান প্রার্থী মিজানুর রহমানের শ্যালক মো. হারুন।

জানতে চাইলে চেয়ারম্যান প্রার্থী মিজানুর রহমান বলেন, ‘আজ (রোববার) দুপুরে প্রতীক বরাদ্দ উপলক্ষে উপজেলার নিার্বচন অফিসের সামনে যাই। সেখানে যাওয়ার পরপরই আমার উপর হামলা চালিয়েছে লিয়াকত আলীর নেতৃত্বে আবু বক্কর রিমন ও ইয়াবা মামলার আসামি শাহাদাত হোসেন লিটন এবং মিজান প্রকাশ পিচ্ছি মিজান।

হামলার ঘটনায় আমার সঙ্গে থাকা নলুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ন সম্পাদক জুলফিকার আলি চৌধুরী ভুট্টো, এমরান, কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজান শোয়েব ও ৩ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সভাপতি আবুল হোসেন আহত হন। পাথর হামলায় ঘটনায় কারও মাথা ফেটে যায়, কারও জখম হয়। আহত অবস্থায় সেখান থেকে উদ্ধার হয়ে দোহাজারী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছি। তার মধ্যে দুইজনের অবস্থা একটু গুরুতর।’

তিনি আরও বলেন, ‘গত শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) মধ্যে রাতে মুখোশ পরিহিত অবস্থায় অস্ত্র নিয়ে ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে আমার শ্বশুরবাড়িতে হামলা চালায়। সেখানে সবার উদ্দেশ্যে হুমকি দেয় যাতে আমি নির্বাচন থেকে সরে যাই। এ ঘটনার পরে উপজেলা নির্বাচন অফিসের রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দেন আমার শ্যালক মো. হারুন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে নলুয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. লিয়াকত আলী বলেন, ‘আমি হামলা করিনি। আমি আজ (রোববার) দুপুরে সেখানে ২ নম্বর ওয়ার্ডের এক মেম্বার প্রার্থীর সঙ্গে আলিঙ্গন করলে উল্টো ওই বৃদ্ধের উপর হামলা চালিয়েছে মিজানুর রহমানের লোকজন। আমি আমার গাড়ি নিয়ে উপজেলা নির্বাচন অফিস গিয়েছি। ওরা আসছে চার থেকে পাঁচ গাড়ি লোকজন নিয়ে। হামলায় আমার তিন থেকে চারজন আহত হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে মাদকের কোনো অভিযোগ বা মামলা নেই। আপনি খোঁজখবর নেন।’

হামলার বিষয়ে জানতে চাইলে সাতকানিয়া থানার ওসি মো. আব্দুল জলিল বলেন, ‘কেউ অভিযোগ করেনি এখনও। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

২০২১ সালের ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ (আইজিপি) বরাবরে দেওয়া একটি অভিযোগের বিষয়ে সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘২০১৯ সালের সাতকানিয়া এলাকায় একটি সফরে আসেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী। ওই সময় লিয়াকত অভিনন্দন জানিয়ে এলাকায় বেশ কিছু পোস্টার টাঙ্গিয়ে দেন। তখন আমি সর্বপ্রথম লিয়াকতকে চিনি।

তখন আমি তাকে ফোনে জিজ্ঞেস করি পোস্টারে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর ছবি সঙ্গে বঙ্গবন্ধু ও নেত্রীর ছবি নেই কেন? আমার এ প্রশ্নের উত্তরে লিয়াকত বলেছিলেন আমি দল করি না। তাই কারও ছবি দেইনি। দুই বছর পর এসে নিজের সব অপকর্ম গোপন করে দলের হাইকমান্ড থেকে মনোনয়ন ভাগিয়ে নিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘লিয়াকত সেনাবাহিনীর বরখাস্ত হওয়া সৈনিক। তার বাবারও তেমন কোনো সম্পত্তি ছিল না। একজন বরখাস্ত সৈনিক কিভাবে অল্প সময়ে এতো টাকার মালিক হলো সেটাও ভাবার বিষয়।’

প্রসঙ্গত, আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি সাতকানিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নলুয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচনে লড়ছেন আওয়ামী লীগের মনোয়নপ্রাপ্ত লিয়াকত আলী, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা কৃষক লীগের সহসভাপতি মিজানুর রহমান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী তসলিমা আবছার।

মতামত