,

অপূর্ব চৌধুরীর ৮ টি অপূর্ব গল্পের সম্মিলন ‘বৃত্ত’

আশরাফ এবং তাহমিনা । দম্পতি । সমুদ্রের ধারে বেড়াতে যায় । সঙ্গে এক বন্ধু । দুজনেরই বন্ধু সে । ভালো বন্ধু ।

দম্পতি মানে পারস্পরিক স্বীকৃত বন্ধুত্ব । কিন্তু সব দম্পতি কি পারস্পরিক বন্ধু হয়ে ওঠে?

“চাপিয়ে দেয়া বন্ধুত্ব কখনো বন্ধু নয়, বন্ধু হতে চাওয়া, বন্ধুর অভিনয় করা । জগতের বেশিরভাগ দম্পতি হয় এমন বন্ধু, নয়তো বন্ধুর অভিনয় করে যাওয়া ।”

সত্যিকার বন্ধু কে ?

আশরাফকে খোঁচা মারে বন্ধুটি,

“জর্জ ক্লোনি পেয়েছে আমল, তুমি পেয়েছ তাহমিনা ।”

আশরাফও কম যায় না ।

“তোমরা জানো ক্লোনি ফ্রেশ ব্যাচেলর ছিল, কিন্তু আমলের আগে তালহার সাথে ক্লোনি ছিল !”

তাহমিনার ঠোঁট দুটো আপনাতেই নড়ে ওঠে ।

“আমরা যা পছন্দ করি, তা চাই না । আবার যা চাই, তা পছন্দ করি না ।”

তিনজনের মাঝে অদ্ভুত এক খেলা খেলে । দ্বন্দ্বে পড়ে যায় সবাই ।

“দ্বন্দ্ব মানুষকে একদিকে যেমন আটকে দেয়, আরেকদিকে দেয়াল পার হতে উদগ্রীব করে তোলে । টানেলে আটকে থাকার চেয়ে টানেলের প্রান্তে যাবার তাড়না পেয়ে বসে । স্থির করতে পারে না কি করবে এমন পরিস্থিতিতে । মন এসবে সিদ্ধহস্ত নয় । যে কোন নতুন পরিস্থিতিতে অভিজ্ঞ মনও অনভিজ্ঞ ঘোলাটে হয়ে ওঠে ।”

পাশাপাশি হাঁটতে হাঁটতে তাহমিনা ছুঁড়ে দেয়,

“পুরুষকে চেনা যায় না – যতক্ষণ পুরুষটির সাথে থাকা হয় না !”

চমকে ওঠে বন্ধু । কথাটি কার জন্যে । আশরাফ নাকি তাকে !

তাহমিনার চোখের দিকে তাকায় ।

“তাহমিনা চুল ছেড়ে দিয়েছে । মুখের সামনে বার বার চুলগুলো চলে আসছে । এলোমেলোর মাঝেই সৌন্দর্যের আকর্ষণটি লুকিয়ে থাকে । পরিপাটি সাজ সুন্দর হবার চেষ্টা শুধু । ওতে আকর্ষণ ক্ষণিকের, মুছে যায় তাড়াতাড়ি । এলোমেলো পথ ধরে যে টুকু আসে – ঐটুকু খাঁটি । মনে প্রিন্ট হয়ে বসে থাকে ।”

জলের দিকে তাকিয়ে দুজনে হাঁটে । গন্তব্য জানে না । রাত গভীর হয়, অন্ধকার নামে ।

“ঠাণ্ডা লাগছে বেশ । জ্যাকেট খুলে তাহমিনার গায়ে জড়িয়ে দিলো । একটা পুলওভার সুয়েটারে শীত যেন কভার করছিলো না তাকে । গায়ে জড়িয়ে দিতে মুখের দিকে চাইলো । চোখ দুটো ছল ছল ।”

তাহমিনা আর নিজেকে ধরে রাখতে পারে না ।

“মেয়েদের চাওয়াগুলো অল্প । কিন্তু সেটুকু পেতেই তাদের সর্বস্ব দিয়ে দিতে হয় কখনো কখনো । আবার অনেক পাওয়াই তাদের চাওয়া নয় । চেয়ে চেয়ে ক্লান্ত হয়ে না চাওয়া পাওয়াটিকেই নিজের চাওয়া বানিয়ে নেয় ।”

অনেকসময় অনেক মুহূর্ত জড়ো হতে হতে একটি ছোট মুহূর্তে এসে বরফ গলে । অনেকগুলো জটলা ভেঙে একটি ছোট জটলায় সব জটলারা এসে থামে ।

বৃত্তের আটটি গল্পের প্রথম গল্প ‘অভিমান’ সে জটলা ভাঙে ক্রমশ । তবে কিসের বিনিময়ে, কোথায় সে পরিণতি এসে ঠেকে । না পড়লে বোঝা যাবে না ।

চমকে ওঠে সময় । শুধু মনে হয় জীবনের বৃত্তে আরেকটি জীবন থাকে ।

বৃত্ত
একগুচ্ছ গল্প
অপূর্ব চৌধুরী
প্রচ্ছদ : রাজীব দত্ত
চৈতন্য প্রকাশন
স্টল নং ২৫০-২৫১
অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২০

মতামত