,

সোনা মনি চাকমার চোখে বাঁশখালীর ইতিহাস

বাঁশখালী যে একটি অমিত সম্ভাবনার জনপদ তা যে কেউ একজন এই জনপদে পা দিলেই বুঝতে পারবে। এবং তার আদর কদর তারাই করবে যাদের আছে একজোড়া জহুরির চোখ। আমি গর্বিত আমি এই জনপদের সন্তান। উন্নয়নের মহাসড়কে পিছিয়ে থাকার কারণ অনুন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা। এক সাঙ্গু সেতু বদলে দিয়েছে এই জনপদের চেহেরা। বর্তমান সরকারের মাননীয় সংসদ আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর হাত ধরে ধীরে ধীরে বদলে যেতে শুরু করছে চেনা জনপদ। তার অনন্য অর্জন বেড়িবাঁধ, প্রশস্ত সড়ক যা আগামীতে কক্সবাজারের সাথে অঙ্গীভূত হয়ে যোগাযোগ এর সামগ্রিক অবস্থা বদলে দিবে। বলছিলাম ভিনগাঁয়ের একজনের কথা। তিনি সোনা মনি চাকমা। চট্টগ্রাম পার্বত্য অঞ্চলে খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলার চোংড়াছড়ি গ্রামে জন্ম নেয়া এই বিশাল হৃদয়ের মানুষটি বাঁশখালীতে কর্মরত থাকা অবস্থায় ঘুরে ঘুরে দেখেছেন বাঁশখালীর প্রতিটি জনপদ। এতে বিমুগ্ধ হয়ে রচনা করেছেন প্রায় ৪০০ পৃষ্ঠার বিশাল কলেবরের বই ‘প্রসঙ্গঃ বাঁশখালী’

সোনামনি চাকমার এই বইয়ের এবং তার কৃতকর্মের প্রতি শ্রদ্ধাস্বরূপ আমাদের জনপ্রিয় ধারাবাহিক এর নাম দিয়েছি প্রসঙ্গ বাঁশখালী। কতটুকু বড় মাপের ব্যক্তি হলে এমন কাজে হাত দেয়া যায় তা তিনি তুলে ধরেছেন এই বইয়ে। বাঁশখালীর প্রবাদপুরুষ ড. আবদুল করিম এর “বাঁশখালীর ইতিহাস ঐতিহ্যে” বিখ্যাত গ্রন্থের পর এই গ্রন্থকে জায়গা দিতে হবে। ভবিষ্যতে কোন গবেষক যদি এই জনপদ নিয়ে কিছু রচনা করতে বসেন তবে এই দুই গ্রন্থ পথ দেখাবে নিঃসন্দেহে। বাঁশখালীর বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ঘাটাঘাটি করছি ২০০৯ সাল থেকে। বেশ কিছু পুরনো পুথি, পুস্তক, জমিদারি পরওয়ানার মত মহামূল্যবান বস্তু সংগ্রহে আছে আলহামদুলিল্লাহ। বাঁশখালী নিয়ে গবেষণা করে এমন ব্যক্তি পেলে তাকে সানন্দে হস্তান্তর করব ইনশাআল্লাহ। একজন ভাইয়ের কাছ থেকে এই বইটি জোর করে নিয়েছি আর ফেরত দেয়া হয়নি। বইটি হাতে নিলে গত শতাব্দী আর এই শতাব্দীর একটি মেল বন্ধন খুঁজে পাবেন। ভদ্রলোকের একটি বড়সড় ধন্যবাদ পাওনা রয়েছে বাঁশখালীবাসীর পক্ষ থেকে। কৃতজ্ঞতা প্রকাশের সুযোগ খুঁজছি, যদি পরিচিত কারো চোখে এই নিউজ পড়ে তার সন্ধান দিতে পারেন বড়ই কৃতার্থ হতাম। তাকে নিয়ে, তার সম্মানে একটি এপিসোড করতে চাই। বইটি আন্দরকিল্লার অভিজাত পুস্তক বিপনিতে পাওয়া যাবে তবে অপ্রতুল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
লেখক: রহিম সৈকত

প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী
বাঁশখালী এক্সপ্রেস

মতামত