আজ রিহ্যাব চট্টগ্রাম ফেয়ার-২০১৮ এর সমাপনী দিন।খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে প্রথমদিন দর্শক ও ক্রেতা কম থাকলেও দ্বিতীয় দিন থেকে ফেয়ার জমে উঠেছে। বেড়েছে বেচাবিক্রি।
স্বল্প ও মধ্যম আয়ের মানুষের সাধ ও সাধ্যের মধ্যে প্লট ও ফ্ল্যাটের পসরা নিয়ে বসেছে ‘রিহ্যাব চট্টগ্রাম ফেয়ার-২০১৮’। চট্টগ্রামবাসীর আবাসন সমস্যার সমাধান ও সহজেই প্লট-ফ্ল্যাটের মালিকানা তুলে দিতে নগরীর হোটেল রেডিসন ব্লু চট্টগ্রাম বে ভিউ-তে ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে মেলা। ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে মেলা উপলক্ষে ফ্ল্যাট কেনা এবং প্লট বুকিংয়ে বিভিন্ন ধরনের পুরস্কার ও বিশেষ ছাড়ের অফার দিচ্ছে অংশ নেওয়া আবাসন কোম্পানি ও বিভিন্ন হাউজিং প্রতিষ্ঠানগুলো। মেলায় বিভিন্ন আবাসন প্রতিষ্ঠান ২০০ প্রকল্প নিয়ে এসেছে। শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) ছুটির দিনে দেখা যায়, বিভিন্ন স্টলে আবাসন প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্মীরা নিজেদের প্রকল্প (ফ্ল্যাট) সম্পর্কে ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের বিস্তারিত তথ্য দিচ্ছেন।

ইউনিক এসেটস্ লিমিটেডের সিনিয়র বিক্রয় নির্বাহী নাজমুল আহমেদ আসিফ জানান, শনিবারে তারা একটি ফ্ল্যাট বিক্রি করেছেন। রোববার শেষদিনও আরো দুটি ফ্ল্যাট বিক্রির সম্ভাবনা রয়েছে। তিনি আরো জানান, প্রাইম লোকেশনে আমাদের প্রোজেক্টগুলো হওয়াতে ক্রেতারা দ্রুত পছন্দ করতে পারছেন। মেলায় ক্রেতা-দর্শক সমাগমে তিনি খুশি বলে জানান।

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান (সিডিএ) আবদুচ ছালাম ৮ ফেব্রুয়ারি দুপুরে রেডিসন ব্লু হোটেলের মেজবান হলে চার দিনব্যাপী আবাসন মেলার উদ্বোধন করেন। ‘স্বপ্নিল আবাসন সবুজ দেশ, লাল সবুজের বাংলাদেশ’- এ স্লোগানে আবাসন মালিকদের শীর্ষ সংগঠন রিয়েল এস্টেট এ্যান্ড হাউজিং এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব) আয়োজিত এবার মেলায় ৪২টি আবাসন প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি সাতটি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান এবং ১০টি নির্মাণ উপকরণ প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। সব মিলিয়ে মেলায় মোট ৫৯টি প্রতিষ্ঠান ৮৩টি স্টল নিয়ে অংশ নিয়েছে।

%d bloggers like this: